1. dainikasharalo@gmail.com : admin2021 :
  2. sagor201523@gmail.com : AKASH :
  3. anisurrohman2012@gmail.com : anisur : anisur rohman
  4. qtvbanglanews2018@gmail.com : sagor201523@gmail.com :
১৫ অগাস্টে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা ও ২১ অগাস্টে আওয়ামী লীগের সমাবেশে বোমা হামলার ঘটনা ‘বিছিন্ন নয়’ খালেদা জিয়ার প্রত্যক্ষ মদদ ছিল ওই হামলার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন - Dainikasharalo.com
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:২৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর উদ্দেগে ব্লাড গ্রুপ ও মেডিকেল ক্যাম্পেইন আয়োজন ​আমাদের বেতন ভাতা পোশাক সব কিছু জনগনের ট্যাক্সের টাকায় — এসপি প্রলয় কুমার জোয়ার্দার ছাত্রীদের তোপের মুখে জবির হল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত বেনাপোল চেকপোষ্ট কাস্টমস থেকে ১,৭০,০০০মার্কিন ডলার সহ দুইজন আটক বেনাপোল চেকপোষ্ট থেকে বিপুল পরিমান মার্কিন ডলার সহ দুই জন আটক দূর্গাপূজায় সম্প্রীতি নষ্ট করলে কঠোর ব্যবস্থা শার্শায় প্রেমিকের সাথে কিশোরী আটকের পর গণধর্ষনের অভিযোগে গ্রেফতার ২ কয়রায় গবাদিপশুর অবাধ বিচরণে ঘটছে দুর্ঘটনা, জনমনে অশান্তি  সাফে ইতিহাস গড়ে বীরবেশে দেশে চ্যাম্পিয়ন মেয়েরা শিশুদের উন্নয়নে কাজ করছে নড়াইল চাইল্ড ফোরাম




১৫ অগাস্টে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা ও ২১ অগাস্টে আওয়ামী লীগের সমাবেশে বোমা হামলার ঘটনা ‘বিছিন্ন নয়’ খালেদা জিয়ার প্রত্যক্ষ মদদ ছিল ওই হামলার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন

  • প্রকাশিত : রবিবার, ২১ আগস্ট, ২০২২
  • ৭ বার পঠিত:

১৫ অগাস্টে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা ও ২১ অগাস্টে আওয়ামী লীগের সমাবেশে বোমা হামলার ঘটনা ‘বিছিন্ন নয়’ খালেদা জিয়ার প্রত্যক্ষ মদদ ছিল ওই হামলার
মেয়র আশরাফুল আলম লিটন
বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
যশোর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সাবেক বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটনবলেন, বিশ্ব মানবতার মা, জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলার মানুষের মুক্তির জন্য ১৯৮১ সালে এদেশে এসেছিলেন। এসেছিলেন তার পিতার অসামাপ্ত স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে সেই নেত্রী যখন ২০০৪ সালের ২১ আগষ্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে বক্তব্য দিচ্ছিলেন তখন ওই বিএনপি জামাত এর সন্ত্রসীরা তাকে গ্রেনেড হামলা করে। যে গ্রেনেড যুদ্ধ ক্ষেত্রে ব্যবহার হয় সেই গ্রেনেড হামলা চালায়। জননেত্রী সভামঞ্চের পাশে সেদিন তিনটি গ্রানেড সেদিন বাষ্ট হয়নি। প্রানে বেঁচে যান শান্তির কন্যা লড়াই সংগ্রাম ঐতিহ্যর ধারক বাহক সেই মহান নেত্রী এই বাংলার অগ্রদুত দৃড়চেতা মানুষ আমাদের নেত্রী আজকের প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা । পঁচাত্তরের ১৫ অগাস্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার ধারাবাহিকতায় তার মেয়ে শেখ হাসিনা ও আওয়ামীলীগকে চিরতরে নিশ্চিহ্ন করে দিতেই ২০০৪ সালের ২১ অগাস্টে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলা হয়েছিল । বঙ্গবন্ধু হত্যার ‘মূল কুশীলব’ জিয়াউর রহমানের ধারাবাহিকতায় তার দল বিএনপি ‘রাষ্ট্রীয় মদদে’ জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে ২১ অগাস্টের হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে।২০০৪ সালের ২১ অগাস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশে হামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রত্য মদদ ছিল বলেও অভিযোগ এনেছেন জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আশরাফুল আলম লিটন। তিনি বলেন, পঁচাত্তরের ১৫ অগাস্টে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা ও ২১ অগাস্টে আওয়ামী লীগের সমাবেশে বোমা হামলার ঘটনা ‘বিছিন্ন নয়’।“একাত্তরের সেই পরাজিত শক্তি ১৫ অগাস্টে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর জাতীয় চার নেতাকে জেলের অভ্যান্তরে হত্যা করলেন। এরপর বাংলাদেশের সংবিধান পরিবর্তন করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পরিপন্থি সাম্প্রদায়িক রাজনীতির শুরু হল। ২১ আগষ্টের বঙ্গবন্ধু এভিনিউ প্রাঙ্গনে বিএনপি জামায়াত সন্ত্রাসীদের ভয়াল গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে এসব কথা বলেন আশরাফুল আলম লিটন।

রোববার বেলা ৫ টা সময় উলাশী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ আয়োজিত ২০০৪ সালের ২১ আগষ্টের বঙ্গবন্ধু এভিনিউ প্রাঙ্গনে বিএনপি জামায়াত সন্ত্রাসীদের ভয়াল গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদ সমাবেশে শার্শার উলাশী বাজারে এ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন উলাশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম।

প্রধান অতিথি আশরাফুল আলম লিটন বলেন“পঁচাত্তরে দেশের বাইরে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। খুনিরা সেই অসম্পূর্ণ কাজটি সম্পন্ন করার জন্য ২১ অগাস্টে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলা করে। এ হামলা হয়েছিল তৎকালীন জোট সরকারের মদদে, তাদের ছত্রছায়ায়। তাদের উদ্দেশ্যে ছিল, শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগ নেতাদের নিশ্চিহ্ন করে দেওয়া, যাতে করে আগামী ১০০ বছরে আওয়ামী লীগ মতায় আসতে না পারে। এ হামলায় বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জননেত্রীর সব থেকে কাছের মানুষ আইভি রহমান নিহত হন। সব থেকে হৃদয় বিদারক ঘটনা সেদিন আইভি রহমান এর দুটি পা গ্রানেড হামলায় উড়ে গেলেও ওই জালিম সরকার কোন হাসপাতালে চিকিৎসা হতে দেয়নি। ঢাকা শহরের সকল ঔষুধের দোকানও সেদিন বন্ধ করে দেয়া হয়। হাসপাতাল গুলি ও বন্ধ করে দেয়া হয়।

তিনি বলেন, ১৮ বছর আগে ২০০৪ সালের ২১ অগাস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে গ্রেনেড হামলায় দলের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আইভি রহমানসহ ২৪ নেতা-কর্মী প্রাণ হারান।প্রাণে রা পেলেও স্থায়ীভাবে শ্রবণেন্দ্রীয় তিগ্রস্ত হয় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা এবং শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত নিরাপত্তাকর্মীরা মানববর্ম সৃষ্টি করে তাকে রা করে নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে যান।
ওই ঘটনায় আহত হন আওয়ামী লীগের পাঁচ শতাধিক নেতা-কর্মী, যাদের অনেকেই চিরতরে পঙ্গত্ব হয়ে গেছেন, অনেকেই আর স্বাভাবিক জীবন ফিরে যেতে পারেননি।বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে এ মামলার তদন্ত ভিন্ন খাতে নেওয়ার চেষ্টা হয়েছিল বলে অধিকতর তদন্তে উঠে আসে।তদন্তে জানা যায়, হামলার বিষয়ে নোয়াখালীর জজ মিয়ার ‘স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি’ দেওয়ার বিষয়টি ছিল সাজানো। আর এই হামলার মদদ ছিল তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমানের।

তিনি আরো বলেন সেই ধারাবাহিকতায় ২১ অগাস্টে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে গ্রেনেড মেরে হত্যার অপচেষ্টা হয়েছে। সেটির অনুমোদন দিয়েছে খালেদা জিয়া আর পরিচালনা করেছে জিয়াউর রহমানের পুত্র তারেক রহমান। অর্থাৎ দুটি হত্যাকান্ড একইসূত্রে গাঁথা।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্ট মন্ডলীর সদস্য আহসান উল্লাহ মাষ্টার, শার্শা উপজেলা ভাইচ চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক ইলিয়াছ আযম, দপ্তর সম্পাদক আজিবর রহমান, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক শেখ কোরবান আলী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক শেখ সারোয়ার, কায়বা ইউনিয়ন পরিষদ এর চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন, নিজামপুর ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম রেজা বিপুল, সাবেক ছাত্র নেতা রুহুল কুদ্দুস বেনাপোল পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র সাহাবুদ্দিন মন্টু, পৌর যুবলীগের আহবায়ক সুকুমার দেবনাথ, পৌর ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামান আশা সহ যুবলীগ, ছাত্রলীগে স্বেচ্ছাসেবকলীগ সহ আওয়ামীলীগের অঙ্গসংগঠনের নেতাকমীরা।

 




এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ




স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২    বিঃদ্রঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম মেনে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিবন্ধনের জন্য অপেক্ষামান।

 
Theme Developed By ThemesBazar.Com