1. [email protected] : admin2021 :
  2. [email protected] : AKASH :
  3. [email protected] : anisur : anisur rohman
  4. [email protected] : [email protected] :
শার্শায় মৎস্যজীবীরা হুমকির কারনে টেন্ডার জমা দিতে ভয় পাচ্ছে - Dainikasharalo.com
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৯:২৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
কয়রা উপজেলায় আশ্রয়ন প্রকল্পের রাস্তার বেহাল দশা বেনাপোল বন্ধন ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ১ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন বেনাপোল সীমান্ত থেকে পিস্তল,গুলি,ম্যাগজিন সহ আটক ০১ বেনাপোলে ০৩ মামলার সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার শার্শার জামতলা বাজারে মায়া ডিজিটাল ষ্টোডিওতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড বেনাপোলে পুলিশের অভিযানে ভারতীয় গাঁজা সহ আটক ৩ প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ বেনাপোলে সাংবাদিকদের সাথে বিজিবির মত বিনিময় সভা যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর উদ্দেগে ব্লাড গ্রুপ ও মেডিকেল ক্যাম্পেইন আয়োজন ​আমাদের বেতন ভাতা পোশাক সব কিছু জনগনের ট্যাক্সের টাকায় — এসপি প্রলয় কুমার জোয়ার্দার




শার্শায় মৎস্যজীবীরা হুমকির কারনে টেন্ডার জমা দিতে ভয় পাচ্ছে

  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ৩৮ বার পঠিত:

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
”জাল যার জলা তার” এ নীতির আলোকে সরকারী জলমহল ইজারা দেওয়ার টেন্ডার আহবানে প্রকৃত মৎস্যজীবিরা যাতে টেন্ডার জমা না দেয় তার জন্য হুমকি প্রদান করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে। শার্শার উলাশী ইউনিয়নের বেতনা নদীর পাড়ের মৎস্যজীবীদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এমনকি ওই নদীর পাড়ের ”বাকি গিলাপোল মৎসজীবি সমবায় সমিতির” (রেজি নং ২৪০- জে ) জেলেদের সরকারী নীতিমালা উপো করে একজন সাবেক ইউপি মেম্বার তার বাহিনী দিয়ে মৎস্য আহরণ থেকেও বঞ্চিত করে আসছে।

বাকি গিলাপোল মৎসজীবি সমবায় সমিতির সভাপতি বিন্দা বিশ্বাস জানায় বিগত ২১/০৮/১৯৭২ সালে এই সমিতি গঠন হয়। সরকারী নিয়ম অনুযায়ী জল মহলের দুই পাড়ের প্রকৃত মৎসজীবিরা মৎস্য আহরন করবে। কিন্তু দুর্ভাগ্য বশত সরকারের পালাবদলের কারনে এই সমিতি কোন দিন ও মৎস্য আহরণ করতে পারেনি। সরকার ২৩ টি পরিবারকে কার্ড ও প্রদান করে। এই ২৩ টি পরিবার সহ দুই পাড়ে প্রায় শতাধিক মৎস্যজীবী পরিবার বসবাস করে। এখানকার জোরদার কিছু লোকের জন্য আমরা মৎস শিকার করতে না পেরে মানবতার জীবন যাপন করছি।

ওই সমিতির সাধারন সম্পাদক উত্তম বিশ্বাস বলেন, উলাশী ১০১ নং মৌজার ১ নং খতিয়ানের ১৯১৩ নং দাগের ১৩.৩৮ একর বেতনা নদীর জমিতে দীর্ঘ দিন যাবৎ জোরদার লোকেরা মাছ ধরে খাচ্ছে। তারা আমাদের ওই জলমহলে নামতে দেয় না। সরকার টেন্ডার আহবানের ঘোষনা দেওয়ায় আমরা বাকি গিলাপোল মৎস্যজীবী সমাবায় সমিতির প থেকে টেন্ডার জমা দেওয়ার প্রস্তুতি নিলে উলাশী ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার তরিকুল ইসলাম মিলন এর বাহিনী জিল্লুর রহমান, কানু দাস, মোমিনুর ও মোহন দে টেন্ডার জমা না দেওয়ার জন্য হুমকি প্রদান করছে। আমাদের ওই সমিতি প্রতিষ্টার পর থেকে কখনো যুব উন্নয়ন, কখনো ভুমিহীন পরিবার কখনো বিভিন্ন নামের কাব টেন্ডার নিয়ে কাজ করছে। আগামি ২৮/০২/২২ তারিখ টেন্ডার জমা দেওয়ার শেষ তারিখ। কিন্তু আমাদের উপর হুমকি ধামকি প্রদর্শনে টেন্ডার জমা না দিলে প্রকৃত মৎস্যজীবীরা এবারও এই জলমহল থেকে বঞ্চিত হবে। গত ৩১/০৩/২০১৬ সালে প্রকৃত মস্যজীবীদের ২৩ জনের নামে কার্ড ইস্যু হলেও তারা মৎস্য আহরন থেকে বঞ্চিত রয়েছে।

বেতানার দুই পাড়ের শুশান্ত বিশ্বাস, হরিপদ বিশ্বাস ও ভারত বিশ্বাস জানান, আমরা জেলে পরিবার। মাছ ধরা আমাদের পেশ। সেই পেশা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। এখন আগের মত আর খাল বিলে মাছ পাওয়া যায় না। সরকার আমাদের জাল যার জলা তার ঘোষনা দিলেও আমরা প্রভাবশালী লোকের কাছে ধরা । তারা আমাদের নামতে দেয়না মাছ ধরতে । আমরা সত্যি বড় কষ্টে আছি। সরকারের কাছে আবেদন এই জলাশয় উন্মুক্ত করে আমাদের মাছ ধরার সুযোগ সৃষ্টি করে দিক।

এ বিষয় জানতে চেয়ে শার্শা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলীফ রেজাকে ফোন করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নাই।

 




এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ




স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২    বিঃদ্রঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম মেনে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিবন্ধনের জন্য অপেক্ষামান।

 
Theme Developed By ThemesBazar.Com