1. [email protected] : admin2021 :
  2. [email protected] : AKASH :
  3. [email protected] : anisur : anisur rohman
  4. [email protected] : [email protected] :
বেনাপোল বন্দরে সিঅ্যান্ডএফ লাইসেন্স বাতিল ও মামলার প্রতিবাদে অব্যাহত কর্মবিরতী। বন্ধ আমদানি-রফতানি - Dainikasharalo.com
বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:৩৪ অপরাহ্ন




বেনাপোল বন্দরে সিঅ্যান্ডএফ লাইসেন্স বাতিল ও মামলার প্রতিবাদে অব্যাহত কর্মবিরতী। বন্ধ আমদানি-রফতানি

  • প্রকাশিত : রবিবার, ৬ মার্চ, ২০২২
  • ২৫২ বার পঠিত:

বেনাপোল প্রতিনিধি:
বেনাপোলে বন্দরে মিথ্যা ঘোষণায় মাদক ও নিষিদ্ধ পণ্য আমদানিতে সহযোগীতার অভিযোগে দুই সিঅ্যান্ডএফ লাইসেন্স বাতিলও মামলা দায়েরের প্রতিবাদে আজ রোববার দ্বিতীয় দিনেও চলছে ব্যবসায়ীদের কর্মবিরতী। বেনাপোল কাস্টমস হাউসের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ শুরু করেছে। এতে গতকাল সকাল থেকে এপথে ভারতের সাথে বন্ধ রয়েছে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য ও পণ্য খালাস কার্যক্রম। ফলে বন্দরে শত শত ট্রাক পণ্য নিয়ে আটকা পড়েছে।

এর আগে গত বুধবার সকালে বেনাপোল বন্দর থেকে গোপন সংবাদে একটি ভারতীয় ট্রাক আটক করে কাস্টমস সমস্যরা। পরে ট্রাক তল­াশি করে বৈধ পণ্যের সাথে রাখা বিপুল পরিমানে ফেনসিডিল,মদ,সিগারেট,বোমা তৈরীর সরঞ্জম ও মিথ্যা ঘোষণার পণ্য পায়। মাদকের চালান প্রবেশে সহযোগীতার অভিযোগে শিমুল ট্রেডিং এজেন্সী ও আইডিএস গ্র“প লিমিটেড নামে দুই সিঅ্যান্ডএফ লাইসেন্স বাতিল ও এক কর্মচারীর নামে পুলিশে মামলা দায়ের করে কাস্টমস সদস্যরা। এভাবে মাদক প্রবেশে যুব সমাজ তির মুখে পড়বে শঙ্কায় পড়েছেন স্থানীয়রা। অপরাধীদের সনাক্ত করে শাস্তি মুলক ব্যবস্থার দাবী জানিয়েছেন তারা।

এদিকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে সড়ক ও রেল পথে বড় ধরনের বাণিজ্য হয় ভারতের সাথে। কর্মবিরতীতে দুই দিন ধরে বাণিজ্য বন্ধ থাকায় বেনাপোল ও পেট্রাপোল বন্দরে সহ¯্রাধিক ট্রাক পণ্য নিয়ে আটকা পড়েছে। আটকা পড়া আমদানি পণ্যের মধ্যে শিল্পকলকারখানার কাচামাল,খাদ্য দ্রব্য জাতীয় পণ্য। রফতানি পণ্যের মধ্যে পাট ও পাটজাত পণ্য উলে­খ্যযোগ্য।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক জামাল হোসেন বলেন, কোন আমদানি কারক বা সিঅ্যান্ডএফ চোরাচালানী করেনা। যারা এসবের সাথে জড়িত কাস্টমস তাদের ছেড়ে দিয়ে ব্যবসায়ীদেও নামে মামলা করেছে। মামলা প্রত্যাহর ও লাইসেন্স বাতিলে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা না হলে এ কর্মবিরতী চলবে।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাজেদুর রহমান জানান, ভারত থেকে বৈধ পণ্যের সাথে অবৈধ পণ্য চালান পাঠাচ্ছে চোরাকারবারীরা। এর সাথে ট্রাক চালকও জড়িত। তবে কাস্টমস তাদের বিরুদ্ধে কোন শাস্তিমুলক ব্যবস্থা গ্রহন না করে আমাদের সাধারণ ব্যবসায়ীদের হয়রানি মুলক মামলা ও লাইসেন্স বাতিল করেছে। এটি ন্যায় বিচার হয়নি। একারনে ব্যবসায়ীরা কর্মবিরতী পালন করছে।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের জয়েন্ট কমিশনার আব্দুর রশিদ মিয়া জানান, মাদক ও অবৈধ পণ্য নিয়ে প্রবেশ করানোর অভিযোগে সিঅ্যান্ডএফ লাইসেন্স বাতিল,ট্রাক চালক ও আমদানি কারক ও সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীদের নামে মামলা করা হয়েছে। যখন বৈধ পণ্যের সাথে মাদক বা আমদানি নিষিদ্ধ পণ্য প্রবেশ করে তখন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া ছাড়া উপায় থাকেনা ।

 




এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ




স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২    বিঃদ্রঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম মেনে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিবন্ধনের জন্য অপেক্ষামান।

 
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!