1. dainikasharalo@gmail.com : admin2021 :
  2. sagor201523@gmail.com : AKASH :
  3. anisurrohman2012@gmail.com : anisur : anisur rohman
  4. qtvbanglanews2018@gmail.com : sagor201523@gmail.com :
বেনাপোল অমর একুশ উদযাপন।। বৃটিশদের থেকে কোন অংশে পাকিস্তানীরা কম অত্যাচারী ছিল না - মেয়র লিটন - Dainikasharalo.com
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর উদ্দেগে ব্লাড গ্রুপ ও মেডিকেল ক্যাম্পেইন আয়োজন ​আমাদের বেতন ভাতা পোশাক সব কিছু জনগনের ট্যাক্সের টাকায় — এসপি প্রলয় কুমার জোয়ার্দার ছাত্রীদের তোপের মুখে জবির হল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত বেনাপোল চেকপোষ্ট কাস্টমস থেকে ১,৭০,০০০মার্কিন ডলার সহ দুইজন আটক বেনাপোল চেকপোষ্ট থেকে বিপুল পরিমান মার্কিন ডলার সহ দুই জন আটক দূর্গাপূজায় সম্প্রীতি নষ্ট করলে কঠোর ব্যবস্থা শার্শায় প্রেমিকের সাথে কিশোরী আটকের পর গণধর্ষনের অভিযোগে গ্রেফতার ২ কয়রায় গবাদিপশুর অবাধ বিচরণে ঘটছে দুর্ঘটনা, জনমনে অশান্তি  সাফে ইতিহাস গড়ে বীরবেশে দেশে চ্যাম্পিয়ন মেয়েরা শিশুদের উন্নয়নে কাজ করছে নড়াইল চাইল্ড ফোরাম




বেনাপোল অমর একুশ উদযাপন।। বৃটিশদের থেকে কোন অংশে পাকিস্তানীরা কম অত্যাচারী ছিল না ——- মেয়র লিটন

  • প্রকাশিত : সোমবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ১২ বার পঠিত:

বেনাপোল অমর একুশ উদযাপন।।
বৃটিশদের থেকে কোন অংশে পাকিস্তানীরা কম অত্যাচারী ছিল না
——- মেয়র লিটন
মোঃ আনিছুর রহমান, বেনাপোল থেকেঃ
যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ও বেনাপোল পৌরমেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেছেন, ভাষা শক্তি, ভাষা আবেগ, ভাষা আবেদন একটি মানুষকে একটি জাতিকে অনন্য এক উচ্চতায় নিয়ে যেতে পারে। বাংলা ভাষা আমাদের মায়ের ভাষা, আমাদের প্রানের ভাষা, সুমুধুর ভাষা যে ভাষায় গান কবিতা শিল্প সাহিত্য আমদের অন্তর আত্না জুড়িয়ে যায়। যে ভাষার রুপ রস সারা পৃথিবীকে আবেগ আল্পুত করে তোলে সেই দিনটি একুশে ফেব্রয়ারী। একটি সময় রাজনৈতিক দৈন্যতার কারনে ধর্মের ভিত্তিতে ভারতীয় উপমহাদেশ বিভক্ত হয়েছিল। পুর্ব পাকিস্তান ও পশ্চিম পাকিস্তান এর দুরত্ব ২ হাজার কিলোমিটার। আর দেশকে বিভক্ত করেছিল একই ধর্মের সংখ্যা গরিষ্ট মানুষ হিসাবে। বাঙালীরা আশা করেছিল তাদের থেকে সুবিচার পাবে। আমাদের সন্তানরা চাকরী পাবে, অভাবীরা খাবার পাবে। কিন্ত আমরা পেলাম তার উল্টোটা। তারা আমাদের একের পর এক ঠকাতে থাকল। পুর্ব পাকিস্তানের সম্পদ নিয়ে যেতে থাকল পশ্চিম পাকিস্থানে। ২৪ টি বছর এই ভুখন্ডের মানুষকে তারা ঠকাতে থাকল। তারা আমাদের ভাষায় হাত দিয়েছে। একটি জাতির প্রধান এবং প্রথম সম্পদ হচ্ছে ভাষা। সেই ভাষায় তারা হাত দিয়েছে। তারা আর যাই হোক বন্ধু হতে পারে না। তারা বৃটিশদের থেকে কোন অংশে কম অত্যাচার করেনি আমাদের এই ভুখন্ডের মানুষকে। তারা আমাদের অধিকার মায়ের ভাষা কেড়ে নিতে চেয়েছিল। যারা আমাদের মায়ের ভাষার জন্য রাজপথে ঢেলে দিয়েছেন বুকের তাজা রক্ত, লড়াই করেছেন আমাদের অস্তিত্বের জন্য, তাদের আমরা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি। তাদের সে রক্তভেজা পথ ধরে আমাদের ভাষা বাংলাও একদিন ইংরেজির মতো পৃথিবীর বুকে আন্তর্জাতিক ভাষার মর্যাদা নিয়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে। সোমবার সকাল ৯ টার সময় তিনি বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে প্রধান অতিথি হিসাবে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলে এসব কথা বলেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ৮ টার সময় বেনাপোল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগ ও বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগ এর আয়োজনে ভাষা শহীদদের স্মরনে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগ নেতা মোজাফফার হোসেন।

প্রধান অথিথি মেয়র লিটন বলেন, এই ভূখণ্ড সার্বভৌমত্ব রায় আমাদের পূর্বপুরুষরা বার বার রক্ত দিয়েছেন। রা করেছেন দেশকে। জাতিকে নিয়ে গেছেন এক অনন্য উচ্চতায়। কোন অন্যায্য দাবি-অনধিকার তারা মেনে নেননি। আমরাও কোন অন্যায্য দাবি-অনধিকার মেনে নেব না। আমরা এই দিনটিকে শোক দিবস হিসেবে পালন করতাম। যেদিন সারাবিশ্ব সম্মান জানিয়ে বাংলা ভাষাকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে আমি সেইদিন থেকে বিশ্বাস করি, ইংরেজি ভাষা বলে যেমন একজন লোক নিজেকে স্মার্ট মনে করেন একদিন বাংলা ভাষা বলেও মানুষ তার স্মার্টনেস দেখাবে। বাংলা ভাষার শিল্প-সাহিত্য, কবিতা-গল্প একদিন সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়বে।

তিনি বলেন, সুধীজন, প্রিয়জন, আপনজন প্রিয় বেনাপোলবাসী, আমরা সবাই সবাইকে ভালোবাসি।আমাদের সন্তানদেরকে একুশের চেতনা, ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস, ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সম্পর্কে ধারণা দিতে হবে এবং তা লালন করাতে হবে। কারণ এ দিনগুলো আমরা রক্তের বিনিময়ে পেয়েছি।

এর আগে বেনাপোল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিভিন্ন সংগঠনের নেতা কর্মীরা বিনম্র শ্রদ্ধায় পুস্পস্তবক অর্পন করেন শহীদদের স্মরনে। শ্রদ্ধা নিবেদন করে শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগও বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগ, বেনাপোল পৌরসভা, বেনাপোল পৌর যুবলীগ, আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরাম, বেনাপোল মরিয়ম মেমোরিয়াল বালিকা বিদ্যালয়, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগ, শার্শা উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ, বেনাপোল পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী, বেনাপোল ইমরাত শ্রমিক ইউনিয়ন, শার্শা উপজেলা ও বেনাপোল পৌর ছাত্রলীগ।

আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মালেক, দপ্তর সম্পাদক আজিবর রহমান, পৌর প্যানেল মেয়র সাহাবুদ্দিন মন্টু, আওয়ামীলীগ নেতা মতিয়ার রহমান মধু, বেনাপোল পৌর আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক সুকুমার দেবনাথ, বেনাপোল ৯ নং আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক আশাদুজ্জামান আশা,আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরাম এর যশোর জেলার কার্যকরি সদস্য জাকির হোসেন আলম, শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সজল, প্রমুখ।

 




এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ




স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২    বিঃদ্রঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম মেনে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিবন্ধনের জন্য অপেক্ষামান।

 
Theme Developed By ThemesBazar.Com