1. dainikasharalo@gmail.com : admin2021 :
  2. sagor201523@gmail.com : AKASH :
  3. anisurrohman2012@gmail.com : anisur : anisur rohman
  4. qtvbanglanews2018@gmail.com : sagor201523@gmail.com :
বেনাপোলের পুটখালী ও বাহাদুরপুর নৌকা প্রতীকের প্রচারণা।। পরধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য জাতির জনকের আহব্বানে আলাদা ভুখন্ড ও লাল সবুজ পতাকার জন্য এদেশের মানুষ যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল - মেয়র আশরাফুল আলম লিটন - Dainikashar Alo
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ট্রাক টার্মিনাল পাবলিক টয়লেট এর উদ্বোধন|| পাবলিক টয়লেট পরিচালনা ও রক্ষনবেক্ষনের জন্য বেনাপোল পৌরসভা ও ভুমিজ’র মধ্যে ইজারা চুক্তি স্বার শার্শায় ইউপি নির্বাচনে নৌকা বিদ্রোহী ভাগাভাগি শার্শায় ইউপি নির্বাচনে ৫টি বিদ্রোহী ও ৫টি নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা বিজয় অর্জন করেছে রবিবার শার্শার ১০ ইউনিয়নে ভোট : প্রস্তুুতি সম্পন্ন ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ চলবে ২ ডিসেম্বর থেকে : স্বস্তিতে বেনাপোলসহ কলকাতাগামী যাত্রীরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে হত্যা করে, বাংলার মানুষের আশা-আকাঙ্খাকেই খুনিরা হত্যা করেছে ——-মেয়র আশরাফুল আলম লিটন মানুষের সেবা করতে যেয়ে যে জনপ্রতিনিধির সম্পদ কমে যায়, সম্পদ বাড়ে না সেই জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করুন ——- মেয়র আশরাফুল আলম লিটন সন্ত্রাস, দুর্বৃত্তায়ন ও সম্পদ লুন্ঠনকারী কোন মানুষ নামের দানবকে জনপ্রতিনিধী করবেন না———- মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বেনাপোলের বাহাদুরপুর বাজারে নৌকার পক্ষে গনসংযোগ নৌকার গনজোয়ার দেখে স্পষ্ট বুঝা যাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের শক্তি বিজয় অর্জন করবে —- মেয়র লিটন

বেনাপোলের পুটখালী ও বাহাদুরপুর নৌকা প্রতীকের প্রচারণা।। পরধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য জাতির জনকের আহব্বানে আলাদা ভুখন্ড ও লাল সবুজ পতাকার জন্য এদেশের মানুষ যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল —— মেয়র আশরাফুল আলম লিটন

  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২১
  • ২৩ বার পঠিত:

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
অত্যাচার, নির্যাতন, নিপিড়ন শোষন ও শাসন পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এদেশকে মুক্ত করেছিল। ১৯৭০ সালের নৌকা প্রতীকের নির্বাচনে আওয়ামীলীগ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্টতা পায়। তখন পাকিস্থানীলা মতা হস্তান্তর করেনি । তখন জাতির জনক এদেশকে পরাধীনতার শৃঙ্খল মুক্ত করতে এবং স্বাধীন সার্বোভৌম রাষ্টের জন্য আহবান জানালে এদেশের সাড়ে ৭ কোটি মানুষ যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে দেশকে মুক্ত করে। জাতির জনক এদেশের মানুষের জন্য তার পরিবারকে সময় না দিয়ে বার বার জেল জুলূম অত্যাচার নির্যাতন সহ্য করেও আলাদা একটি ভুখন্ড উপহার দেয় এই জাতিকে।
কথাগুলো বললেন নৌকা প্রতীকের পুটখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল গফফার সরদার এব্ং বাহাদুরপুর নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মিজানুর রহমান এর নির্বাচনী পথসভায় দৌলতপুর ও ডুবপাড়া নামক গ্রামে মেয়র আশরাফূল আলম লিটন।

শুক্রবার বেলা ১১ টার সময় দৌলতপুর ও বিকাল ৩ টায় ডুবপাড়া এলাকায় প্রধান অতিথি হিসাবে মেয়র লিটন বলেন, আমরা ১৯৭০ সালে নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার মধ্যে দিয়ে পরের বছর স্বাধীন সার্বোভৌম রাষ্ট্র অর্জন করি। তিনি বলেন আজ পুটখালী ইউনিয়নের দৌলতপুর ওয়ার্ড এর সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক নৌকা মার্কার বিরোধিতা করে আনারস প্রতীকের নির্বাচন করছে। আমি তাদের বলে দিতে চাই আজ থেকে আপনারা আনারস নিয়ে থাকেন আপনাদের নৌকার পরিচয় দিতে হবে না। কারন আপনারা জানেন এরা স্বাধীনতার বিরোধী। আমরা নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে স্বাধীনতা পেয়েছি। জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ পিতার দেখানো স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে। তিনি ২৩ বার মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসে এদেশের মানুষকে ছেড়ে পালিয়ে যায়নি। তিনি আমাদের দেশের মানুষকে ভালবেসে এদেশকে পৃথিবীর মানচিত্রে দাঁড় করানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

মেয়র লিটন আরো বলেন, জাতির জনকের মৃত্যুর পর এদেশ যখন ওই পাকিস্থানীদের ভাবধারায় চলতে থাকে। তখন এ দেশের মানুষকে মুক্ত করতে আজকের প্রধানমন্ত্রী ১৯৮১ সালে দেশে ফেরে। অনেক সংগ্রাম চরাই উৎরাই পার করে তিনি দেশকে যখন উন্নত রাষ্ট্রে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে তখন আওয়ামীলীগের মধ্যে কিছু ঘাপটি মেরে থাকা লোক আজ নৌকার খেয়ে নৌকার পরে নিজেদের সন্মানের কাতারে দাঁড় করিয়ে আবার নৌকার বিরোধিতা করছে তারা জাতিয় বেঈমান। আজ আপনারা জানেন আমাদের মুক্তিযোদ্ধা বাবারা যখন সংসার চালানোর জন্য ভ্যান রিক্সা ও জুতা পর্যন্ত পালিশ করিয়েছে তাদের মায়ায় তাদের কান্নার হাহাকার দেখে বঙ্গবন্ধু কন্যা তাদের মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, বয়স্ক ভাতা বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা সহ নানা ধরনের ভাতা দেওয়া শুরু করেছে। আজ বড়ই দুঃখ হয় এই শার্শায় এসেছে একজন দানব রুপি মানুষ। তিনি বিত্তবান পরিবারের অভাবি ুধার্ত একজন মানুষ,বিত্তবান পরিবারের একজন উশৃঙ্খল মানুষ,বিত্তবার পরিবারের এক উদ্ভট চিন্তার মানুষ। সবমিলে তিনি একজন দানববুপি ভয়াঙ্কর মানুষ। এই মানুষটি শার্শায় এসে আজ প্রকৃত আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীদের একের পর এক হামালা মামলা দিয়ে জর্জরিত করেছে। আর এখন সে নির্বাচনে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে আনারস প্রতীক দিয়ে নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে দাঁড় করিয়েছে। এই দানবুপি মানুষটার নিকট থেকে আওয়ামী পরিবার এর নিকট আওয়ামীলীগের রাজনীতি ফিরিয়ে দিয়ে তবে ান্ত হবো। আপনারা বোমা অন্ত্রের ভয় পাবেন না। ২৮ তারিখের নির্বাচনে আপনরা ব্যালট এর মাধ্যেমে জবাব দিবেন ওই বোমা বাজদের। আজ চোরাচালানি ঘাট মালিক বলে পরিচিত যে লোকটি তাকে নির্বাচন করাচ্ছে ওই দানবরুপি মানুষটির রুচির তারিফ করতে হয়। তিনি কত নীচে নেমে গেছেন। আমার লজ্জা হয় এই লোকটি একজন জনপ্রতিনিধি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন পুটখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান ও নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আব্দুল গফফার সরদার, বেনাপোল পৌর আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক সুকুমার দেবনাথ, বেনাপোল ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আশাদুজ্জামান আশা, আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরামের যশোর জেলার কার্যনির্বাহী সদস্য জাকির হোসেন আলম ছাত্রলীগ নেতা আরিফুর রহমান, এনামুল হক মুকুল প্রমুখ।

 

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০২১
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!