1. [email protected] : admin2021 :
  2. [email protected] : AKASH :
  3. [email protected] : anisur : anisur rohman
  4. [email protected] : [email protected] :
দুর্বৃত্তদের আঘাতে ২৫ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মারা গেল শ্রমিক নেতা মগর আলীর পোতা ছেলে কিশোর ইয়াছিন - Dainikasharalo.com
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:৩০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বেনাপোলে বিজিবি-বিএসএফ সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠক বেনাপোলে পৃথক অভিযানে মদ-ফেনসিডিল সহ গ্রেফতার ৩ ভারতে জেল খেটে দেশে ফিরল তিন যুবক ও দুই যুবতী বেনাপোল সীমান্তে ৩ কেজি ৩৫০ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার শার্শায় ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে এক নারীর মৃত্যু শার্শায় ফসলের মাটি গিলে খাচ্ছে ভাটা : প্রভাবশালী সহ জড়িয়ে রয়েছে ইউপি সদস্যরা বেনাপোল পুটখালি সীমান্ত থেকে প্রায় দুই কেজি স্বর্ণসহ আটক ২ হারানো ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা উদ্ধার করে ফিরিয়ে দিয়ে প্রশংশিত বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ ডিমলায় সরকারী রাস্তার সাইড কর্তন দেখার কেউ নেই শার্শায় সড়ক দুর্ঘটনায় সিএনজি যাত্রী এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে




দুর্বৃত্তদের আঘাতে ২৫ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মারা গেল শ্রমিক নেতা মগর আলীর পোতা ছেলে কিশোর ইয়াছিন

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১০ মে, ২০২২
  • ২৩৭ বার পঠিত:
দুর্বৃত্তদের আঘাতে ২৪ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মারা গেল কিশোর ইয়াছিন। সে বেনাপোল কাগজপুকুর কাগমারী ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ এর সাবেক সাধারন সম্পাদক মগর আলীর পোতা ছেলে। মগর আলীকে দুর্বৃত্তরা ১৬ এপ্রিল কুপিয়ে হত্যা করে।

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
দুর্বৃত্তদের রড, হাতুড়ি ও বাটালির আঘাতে প্রায় ২৫ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মৃত্যু বরন করল কিশোর ইয়াছিন (১৫) । বেনাপোলের কাগমারি গ্রামের বেনাপোল বন্দর হ্যান্ডলিংক শ্রমিক ৯২৫ এর সাবেক সভাপতি ও বেনাপোল পৌর সভার কাগজপুকুর কাগমারি ৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মগর আলীকে গত ১৬ এপ্রিল ইফতারির পর দুর্বত্তরা দা দিয়ে কুপিয়ে পেটের ভুড়ি বের করে হত্যা করে। এসময় তার পোতা ছেলে ইয়াছিন ঠেকাতে গেলে তাকেও বাটালি দিয়ে পেটে খুচিয়ে খুচিয়ে নাড়ী ভুড়ি বের করে কুপিয়ে কিডনি নষ্ট করে ফেলে।

মঙ্গলবার সকাল ৮ টার সময় খুলনা আড়াইশ বেড হাসপাতালে ইয়াছিন ২৫ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। এঘটনায় ইয়াছিন এর বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার পরিবার পরিজনের আহাজারিতে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে।

ইয়াছিন এর চাচী ছালমা বেগম বলেন, ইয়াছিন একজন কিশোর। দাদা মগর আলীকে আরব আলী, তার ছেলে হারুন সহ আরো ৯/১০ জন দুর্বৃত্ত গত ১৬ এপ্রিল ইফতাররির পর মারতে থাকে। এসময় ইয়াছিন দাদাকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করে। ওই দিনই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় মগর আলী মারা যায়। আর ইয়াছিনকে খুলনা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎা দেওয়া হয়। অবশেষে গত ২৫ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে সে মারা যায়।

ইয়াছিন এর পিতা হাসান এর সাথে মুঠো ফোনে কথা বললে তিনি বলেন, আমি আমার ছেলেকে বাঁচাতে পারলাম না। তার পেটের মধ্যে বাটালি ঢুকিয়ে মোড়া দিয়ে নাড়ী ভুড়ি ঘুটে দেয় ও একটি কিডনি কেটে ফেলে। দীর্ঘ দিন তাকে চিকিৎসা শেষে ও বাঁচাতে পারলাম না। এর আগে তার পিতা মগর আলীর হত্যাকারীদের নামে মামলা দিলেও পুলিশ মাত্র দুই জনকে আটক করেছে।

স্থানীয় একটি সুত্র বলেছে মগর আলী ও আরব আলী দুই ভাই। তাদের দীর্ঘদিন জমি জমা নিয়ে দ্বন্দ চললে ও তাকে সে ব্যাপারে হত্যা করা হয়নি। মগর আলী হত্যার মুল রহস্য বেনাপোল শ্রমিক ইউনিয়নের বৈধ সভাপতি থাকা কালে তাকে ওই ইউনিয়ন থেকে দুর্বৃত্তরা বোমাবাজি করে বের করে দেয়। সে সকল ষড়যন্ত্র কারীরা সু-কৌশলে তাকে হত্যা করে কারন মগর আলীর প্রতি শ্রমিকদের ছিল আস্থা ও সমর্থন।

হাসান বলেন ইয়াছিন মারা যাওয়ায় বেনাপোল পোর্ট থানায় মগর আলীর হত্যাকারিদের নামে আর একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হবে।
বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি কামাল হোসেন ভুইয়া বলেন, এ বিষয় থানায় কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে মগর আলী হত্যার পলাতক আসামিদের আটক এর চেষ্টা চলছে।

 




এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ




স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২    বিঃদ্রঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম মেনে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিবন্ধনের জন্য অপেক্ষামান।

 
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!