1. [email protected] : admin2021 :
  2. [email protected] : AKASH :
  3. [email protected] : anisur : anisur rohman
  4. [email protected] : [email protected] :
জেল হত্যা দিবসে বেনাপোলের সমাবেশে মেয়রলিটন।। পাকিস্থানীদের প্রেতাত্নারা এখোনও এই শার্শার রাজনীতিতে অঘটন ঘটাচ্ছে - Dainikasharalo.com
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বেনাপোলে বিজিবি-বিএসএফ সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠক বেনাপোলে পৃথক অভিযানে মদ-ফেনসিডিল সহ গ্রেফতার ৩ ভারতে জেল খেটে দেশে ফিরল তিন যুবক ও দুই যুবতী বেনাপোল সীমান্তে ৩ কেজি ৩৫০ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার শার্শায় ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে এক নারীর মৃত্যু শার্শায় ফসলের মাটি গিলে খাচ্ছে ভাটা : প্রভাবশালী সহ জড়িয়ে রয়েছে ইউপি সদস্যরা বেনাপোল পুটখালি সীমান্ত থেকে প্রায় দুই কেজি স্বর্ণসহ আটক ২ হারানো ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা উদ্ধার করে ফিরিয়ে দিয়ে প্রশংশিত বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ ডিমলায় সরকারী রাস্তার সাইড কর্তন দেখার কেউ নেই শার্শায় সড়ক দুর্ঘটনায় সিএনজি যাত্রী এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে




জেল হত্যা দিবসে বেনাপোলের সমাবেশে মেয়রলিটন।। পাকিস্থানীদের প্রেতাত্নারা এখোনও এই শার্শার রাজনীতিতে অঘটন ঘটাচ্ছে

  • প্রকাশিত : বুধবার, ৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩২৪ বার পঠিত:

বেনাপোল প্রতিনিধি:
বাঙ্গালী জাতিকে লড়াই সংগ্রাম করে অস্তিত্ব অর্জন করতে হয়েছে। পৃথিবীর ইতিহাসে সবচেয়ে বাঙ্গালী জাতি লড়াই সংগ্রাম করে যে রক্ত দিয়েছে অন্য কোন জাতিকে ইতিহাসে এত রক্ত দিতে দেখা যায়নি। জেলখানা এমন একটি জায়গা যেখানে সবাই নিরাপদে সরকারি কাষ্টিডিউতে থাকে। আর সেখানে ঐ পাকিস্থানি দোসররা জাতীয় ৪ নেতাকে বর্বর ভাবে হত্যা করে কলঙ্ক লেপন করে এদেশকে পিছিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। জাতীয় ৪ নেতার এমন আদর্শ ছিল যে তাদের হত্যা করার পর কারো ব্যাংকে কোন অর্থ ছিল না। তারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আদর্শিত হয়ে এদেশের মানুষকে ভালবাসত। এদেশের মানুষকে ভালবেসে যার জীবন যৌবন সংগ্রাম করে লড়াই করে জেল খেটে অতিবাহিত হয়েছে সেই বঙ্গবন্ধুকে ও হত্যা করেছে রাজাকার ও পাকিস্থানি দোসররা। যার নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ পরিচালিত হচ্ছে তিনি হচ্ছে জননেত্রী শেখ হাসিনা তিনি আজ সকল পথের মতের মানুষকে প্রধান্য দেন। যারা মানুষকে ভালবাসে না, কষ্ট দেয়, ধোকা দেয় তাদের রাজনীতি শেষ হয়ে যাচ্ছে, আমাদের উন্নত সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য সকলকে কাজ করতে হবে। জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যা করে যে বীরের জাতীকে কলঙ্কীত করা হয়েছে আমরা তাদের ক্ষমা করব না । কথা গুলো বললেন জেল হত্যা দিবসে বেনাপোল আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যলয়ে প্রধান অতিথী হিসাবে যশোর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন।

বুধবার বিকেল ৪টার সময় বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগ এর দলীয় কার্যালয়ে বাংলাদেশ আওয়ামামীলীগ বেনাপোল পৌর শাখা আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের সদস্য আহবায়ক মোজাফফার হোসেন । এসময় বক্তব্য রাখেন শার্শা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মালেক, দপ্তর সম্পাদক আজিবর রহমান, বেনাপোল পৌর যুবলীগের  আহবায়ক সুকুমার দেবনাথ,শার্শা উপজেলা আওয়ামী মহিলালীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিউটি খাতুন, বেনাপোল পৌর আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরামের সভাপতি রহমত আলী, যশোর জেলা আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরামের কার্যনির্বাহী সদস্য জাকির হোসেন আলম,বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের সদস্য মতিয়ার রহমান মধু, বেনাপোল পৌরসভার কাউন্সিলার মিজানুর রহমান বেনাপোল ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামান আশা।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সম্পর্কে প্রধান অতিথি মেয়র লিটন বলেন, আজ প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে এই জনপদের একজন শীর্ষ নেতা নৌকাকে পরাজিত করতে বিদ্রোহী প্রার্থী দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। তিনি এর আগেও গত ২০১৬ সালে আনারস প্রতীক দিয়ে নৌকার বিরুদ্ধে নির্বাচন করিয়েছিল। এবারও তিনি একই কার্যকলাপ করছে শার্শার জনপদে। তিনি বিএনপি জামাতের এবং চোরাচালানিদের দিয়ে নৌকাকে পরাজিত করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। আমি তাকে বলতে চাই আপনার যখন এত আনারস প্রতীকের প্রতি ভালবাসা তখন আগামি সংসদ নির্বাচনে আপনার হাতে নৌকা ধরিয়ে দেওয়া হবে। আপনি টাকার বিনিময়ে আর যাই করেন কোন আদর্শের আওয়ামীলীগের কর্মীর নৌকা মার্কার ভোট কিনতে পারবেন না। তিনি আরো বলেন আজ যখন নির্যাতিত নিপিড়িত ত্যাগি আওয়ামীলীগ নেতাদের হাতে তাদের নৌকা ফিরিয়ে দিতে আমরা কাজ করছি আর তখন এই শীর্ষ জনপ্রতিনিধি ব্যস্ত রয়েছে নৌকাকে ধ্বংস করে ফুটো করে জামাত বিএনপির হাতে নৌকার নেতৃত্ব দিতে। তিনি খুনি মোস্তাক ও জিয়াউর রহমান এর দোসরদের দিয়ে আজ নৌকা প্রতিকের বিরুদ্ধে নির্বাচনের জন্য যে ঘৃনিত কাজ করছে তার জবাব শার্শাবাসী একদিন দিবে।

প্রধান অতিথি জননেতা আশরাফুল আলম লিটন বলেন, পাকিস্থানীদের দোসররা একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের পরাজয় মেনে নিতে পারেনি। তাই তারা আওয়ামীলীগের মধ্যে তথা সরকারের ছত্রছায়ায় ঘাপটি মেরে থেকে ৭৫ এর ভয়াবহ হত্যা কান্ড ঘটিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে। আর এই খুনি চক্রের প্রধান হোতা খন্দকার মোশতাক আহম্মেদ ও জিয়াউর রহমানের নির্দেশনায় জেল খানায় জাতিয় ৪ নেতাকে বর্বর ভাবে হত্যা করা হয়। এই পাকিস্থানী প্রেতাত্নারা আজও আওয়ামীলীগের অভ্যান্তরে ঘাপটি মেরে থেকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ভুলূন্ঠিত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ধারক ও সন্তান তারা শত বাধা এলেও থেমে থাকব না। আমরা জাতিয় ৪ নেতা সহ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে সমুন্নত রাখার জন্য লড়াই করে যাব শেষ পর্যন্ত। যতক্ষন না অপশক্তির হাত থেকে আমরা আওয়ামীলীগের রাজনীতিকে নিতে না পারি। আমার এমপি হওয়ার প্রয়োজন নেই আমি আওয়ামীলীগের রাজনীতি প্রকৃত আওয়ামীলীগারদের হাতে ফিরিয়ে দেওয়ার লড়াই সংগ্রাম করছি। আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই ৭৫ এর হত্যাকান্ডের পর যে ভাবে মুক্তিযুদ্ধাদের বর্বাচিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে একের পর এক এমনকি এই বেনাপোল শার্শায়ও মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করা হয়েছে। যার পুনরাবৃত্তি আমরা আর ঘটতে দেব না। আমরা আমাদের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তের ঋন পরিশোধ করবই। তিনি আগামি ২৮ নভেম্বর ইউপি নির্বাচনে নৈৗকা প্রতীকের প্রার্থীদের ভোট দিয়ে বিজয় করার আহবান জানান।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সজল।

 




এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ




স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২    বিঃদ্রঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম মেনে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিবন্ধনের জন্য অপেক্ষামান।

 
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!