1. [email protected] : admin2021 :
  2. [email protected] : AKASH :
  3. [email protected] : anisur : anisur rohman
  4. [email protected] : [email protected] :
একটি চোখের আলো ফেরাতে লাগবে সাড়ে ৩ লাখ টাকা - Dainikasharalo.com
বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বেনাপোলে বিজিবি-বিএসএফ সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠক বেনাপোলে পৃথক অভিযানে মদ-ফেনসিডিল সহ গ্রেফতার ৩ ভারতে জেল খেটে দেশে ফিরল তিন যুবক ও দুই যুবতী বেনাপোল সীমান্তে ৩ কেজি ৩৫০ গ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার শার্শায় ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে এক নারীর মৃত্যু শার্শায় ফসলের মাটি গিলে খাচ্ছে ভাটা : প্রভাবশালী সহ জড়িয়ে রয়েছে ইউপি সদস্যরা বেনাপোল পুটখালি সীমান্ত থেকে প্রায় দুই কেজি স্বর্ণসহ আটক ২ হারানো ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা উদ্ধার করে ফিরিয়ে দিয়ে প্রশংশিত বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ ডিমলায় সরকারী রাস্তার সাইড কর্তন দেখার কেউ নেই শার্শায় সড়ক দুর্ঘটনায় সিএনজি যাত্রী এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে




একটি চোখের আলো ফেরাতে লাগবে সাড়ে ৩ লাখ টাকা

  • প্রকাশিত : সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৩৪৩ বার পঠিত:

বেনাপোল প্রতিনিধি :
একটি চোখের আলো ফেরাতে লাগবে সাড়ে ৩ লাখ টাকা। অন্য চোখটি আর ভাল হবে না। একটি চোখ দিয়ে পৃথিবীর আলো দেখতে চায় যশোরের বেনাপোল পোর্ট থানার নারায়নপুর গ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে আমিরুল ইসলাম (১৮)।
ডাক্তার বলেছেন তার দুটি চোখের মধ্যে একটি চোখ আর কখনো ভাল করা সম্ভব নয়, কর্নিয়া লাগালে একটি চোখ সে ফিরে পাবে, কর্নিয়া লাগানোর জন্য খরচ হবে সাড়ে তিন লাখ টাকা। কর্নিয়া লাগালে আমিরুল ফিরে পেতে পারে আবারো একটি চোখের স্বাভাবিক আলো। কিন্তু দিনমজুর পিতা ভাইদের পক্ষে এই টাকা জোগাড় করা সম্ভব নয়। তরুণ আমিরুল একটি চোখ দিয়ে পৃথিবীর আলো দেখতে চায়। আবারও সংসারের হাল ধরতে চায়। ছেলের দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেতে স্বজনেরা সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আকুতি জানিয়েছেন। ইতোমধ্যে প্রায় দেড় লাখ টাকা দিয়েছেন বেনাপোলের বিভিন্ন সংগঠন ও স্কুলের বন্ধু ব্যাচের সদস্যরা। বাকী টাকার অভাবে চিকিৎসা করতে পারছেন না আমিরুলের স্বজনেরা।
বেনাপোলের নারায়নপুর গ্রামের বাসিন্দা দিনমজুর আহম্মদ আলীর সন্তান আমিরুল। দিন মজুর পিতার সংসারের হাল ধরতে বেছে নেয় স্যানেটারি মিস্ত্রির কাজ। চলতি বছরের ৯ জুন সকালে বেনাপোল পৌর সভার ৩ নং ওয়ার্ডের রহিমের বাড়িতে স্যানেটারি কাজ করার সময় তার হাতে থাকা শাবলের আঘাতে পরিত্যক্ষ একটি বস্তুুতে আঘাত লাগলে একটি বোমা বিস্ফোরিত হয়। এ সময় বিস্ফোরণে তার মুখ ও বুক ঝলসে যায়। তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে নাভারন ও পরে খুলনা হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে নেওয়া হয় ঢাকা শ্যামলী বিজ্ঞান ও চক্ষু ইনিস্টিটিউট ও ঢাকা বার্ণ ইউনিটে। সেখান থেকে প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা শেষে সম্প্রতি বাড়ি ফিরেছে। একটি অনাকাঙ্খিত দূর্ঘটনার কারনে অসহায় আমিরুলের দুইটি চোখই নষ্ট হয়ে গেছে। তবে একটি চোখে কর্ণিয়া লাগালে সে দেখতে পারবে। সে জন্য খরচ হবে সাড়ে ৩ লাখ টাকা। ২০ দিন পরে ডাক্তার ঢাকার হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেছেন। অর্থের অভাবে নিয়ে যেতে পারছে না আমিরুলকে।
আমিরুলের চোখের অবস্থা আরো দিনদিন খারাপ হচ্ছে বলে হতাশ কণ্ঠে জানান স্বজনেরা। পরিবারের পক্ষ থেকে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আকুতি জানিয়েছে ছেলেটির বড় ভাই আনারুল ইসলাম।
কোন সহৃদয়বান ব্যক্তিরা সাহায্য সহযোগিতা করতে চান তবে বিকাশ নাম্বার-০১৯৯৪-৭৩৭৪৫০(পার্সোনাল) বা সোনালী ব্যাংক বেনাপোল শাখার একাউন্ট নং-২৩০৬৯০১০১২৬৩১ তে পাঠাতে পারেন। এই নাম্বারে ইমু হোয়ার্টসঅ্যাপ খোলা আছে কেউ যদি ভিডিও কলে দেখে সহযোগিতা করতে চান তাহলে অবশ্যই ভিডিও কল দিতে পারেন।

 




এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ




স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২    বিঃদ্রঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম মেনে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিবন্ধনের জন্য অপেক্ষামান।

 
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!