সংবাদ শিরোনাম :
যারা শোষন বঞ্চনার অবসান ঘটিয়ে অনাগত ভবিষ্যাৎ প্রজম্মের জন্য একটি সুখী সমৃদ্ধি বাংলাদেশ উপহার দিয়েছে তাদের প্রতি জানাই হাজারো সালম —– মেয়র আশরাফুল আলম লিটন নবাবগঞ্জে মহিলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন বাঙ্গালী জাতির কাছে গর্বের মাস ডিসেম্বরঃ মুজিব বর্ষে পৌরসভার আরো ৮টি ওয়ার্ডে স্কুল স্থাপন হবে — মেয়র লিটন বিজয় দিবসে শার্শায় গরিব দুঃস্থদের জন্য ‘ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের’ আয়োজন বেনাপোলে ৯২ লাখ টাকার ১৮ টি স্বর্নের বার উদ্ধার সারাদেশে সাংবাদিক নিয়োগ তথ্যপ্রযুক্তি জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মকে আধুনিক বাংলাদেশের নির্মাতা হিসাবে গড়ে তুলতে হবে—– মেয়র আশরাফুল আলম লিটন যে কারো হাতে ছুরি কাচি তুলে দিয়ে যেমন অপারেশন হয়না, তেমনি যে কারো হাতে কলম বুম তুলে দিয়ে সাংবাদিক বানানো যায় না ডিমলা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র উদ্যোগে মহান বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত যশোরের শার্শার কদম বিলে অতিথি পাখির মেলা
রেললাইনে আটক, থানায় নিয়ে গণধর্ষণ

রেললাইনে আটক, থানায় নিয়ে গণধর্ষণ

ডেস্ক রিপোর্টঃ

খুলনার জিআরপি (রেলওয়ে) থানায় এক নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই নারী নিজেই আদালতে থানার ওসিসহ পাঁচ পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।

আদালতের নির্দেশে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য রোববার রাতেই ওই নারীকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। কিন্তু সময় স্বল্পতার কারণে পরীক্ষা হয়নি। সোমবার তাকে আবারো হাসপাতালে নেয়ার কথা রয়েছে। তবে ওসি ঘটনাটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন।

ভুক্তভোগীর বড় বোন জানান, তার বোনের শ্বশুরবাড়ি সিলেটে। বাপের বাড়ি ফুলবাড়িগেট এলাকায়। তাদের মা খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি থাকায় তাকে দেখতে খুলনায় আসেন তিনি। বোন নিজেও অসুস্থ থাকায় বৃহস্পতিবার যশোরে ডাক্তার দেখাতে যায়। শুক্রবার আসার সময় ফুলতলা এলাকায় জিআরপি পুলিশ প্রথমে তাকে মোবাইল চুরির অপরাধে থানায় ধরে নিয়ে যায়।

পরে রাতে জিআরপি পুলিশের ওসি ওসমান গনি পাঠান তাকে ধর্ষণ করে। এরপর আরো চারজন পুলিশ তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরদিন শনিবার পাঁচ বোতল ফেনসিডিলসহ মামলা দিয়ে ওকে আদালতে সোপর্দ করা হয়।

তিনি আরো জানান, আদালতে বিচারকের সামনে নেয়ার পর তার বোন থানায় তাকে গণধর্ষণের বিষয়টি আদালতের সামনে তুলে ধরেন। এরপর আদালতের বিচারক জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তার ডাক্তারি পরীক্ষার নির্দেশ দেন। তবে ওসি ছাড়া বাকি চার পুলিশ সদস্যের নাম জানাতে পারেননি ভুক্তভোগীর পরিবার।

এদিকে, ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ওসি ওসমান গনি মোটা অংকের টাকা দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন। কিন্তু সমঝোতায় রাজি না হওয়ায় তিনি হুমকি দিচ্ছেন বলেও ওই নারীর পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করেছেন।

ওসি ওসমান গনি সোমবার সকালে বলেন, শুনেছি ওই মহিলা তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে আদালতে অভিযোগ করেছে। কিন্তু তাকে মহিলা এসআই এবং মহিলা কনস্টেবল পাঁচ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করে। আর থানায় রাতে আটজন পাহারায় থাকে। সেখানে তাকে ধর্ষণের কোনো সুযোগ নেই। ফেনসিডিলের মামলা থেকে রক্ষা পেতে সে এ ধরনের মিথ্যা অভিযোগ করছে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত-২০১৮-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Theme Developed BY AMS IT & Solutions