কলারোয়ায় প্রধানমন্ত্রীর গৃহায়ন প্রকল্পের পুকুর চুরি তুলে ধরায় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে চাঁদা বাজির মিথ্যা মামলা

কলারোয়ায় প্রধানমন্ত্রীর গৃহায়ন প্রকল্পের পুকুর চুরি তুলে ধরায় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে চাঁদা বাজির মিথ্যা মামলা

কলারোয়া(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কলারোয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ প্রকল্পে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ০৬ নং সোনাবাড়িয়া ইউনিয়নের ০৩ নং ওয়ার্ড শীরামপুর গ্রামের বিল্লাল হোসেনের গৃহ নির্মাণে এই অনিয়মের প্রমাণ পাওয়া যায়। চলতি বছরের জুন মাসে প্রকল্পের টাকা উত্তোলন করা হয়ে গেলেও সেপ্টেম্বর মাসের ৪ তারিখ সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লালটু দেখেন নিম্নমানের উপকরণ দিয়ে গৃহ নির্মাণ কাজ চলমান। গৃহ নির্মানে ব্যবহার হয়েছে নিম্ন মানের ইট,বালু,খোয়া ও নিম্নমানের সিমেন্ট যে কারনে ০৪ সেপ্টেম্বর সরেজমিন পরিদর্শনে বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা যায়।

কলারোয়ার সোনাবাড়িয়া ইউনিয়নের শীরামপুর গ্রামের বিল্লাল হোসেনের গৃহ নির্মাণে এই অনিয়মের ভিডিও প্রকাশ করায় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা চাঁদা বাজির মামলা দেন চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম।
ঘটনাস্থলে উপস্থিত বাসগৃহ নির্মাণ শ্রমিক সুবাস ঘোষ জানান, বিগত ফেব্রুয়ারি মাসে আমরা এই গৃহ নির্মাণের কাজটা শুরু করি বাড়ীটার সামনের কাজ শেষ হলে করোনা ভাইসাসের কারনে কাজ বন্ধ রাখেন চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম তখন থেকে কাজ বন্ধ ছিল বিগত ০৪ দিন ধরে পুনরায় আমরা নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছি, গৃহ নির্মানে ব্যাবহারিত নিম্ন মানের ইট,বালু,খোয়া ও নিম্নমানের সিমেন্ট ব্যবহার সম্পর্কে বলেন চেয়ারম্যান সাহেব আমাদের কে যে মালামাল দিচ্ছেন আমরা সেটা দিয়ে কাজ করছি।

এ বিষয়ে সোনাবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম কে বারংবার ফোন দিলেও তার ব্যবহৃত মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়।
এ বিষয়ে কলারোয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লালটু জানান, এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে আজ ০৪ তারিখ সোমবার সরেজমিন পরিদর্শনে এসে দেখতে পাই গৃহ নির্মানে নিম্ন মানের ইট,বালু,খোয়া ও নিম্নমানের সিমেন্ট ব্যবহার হচ্ছে,এছাড়া ও ইতোমধ্যে নির্মিত ঘরের বিভিন্ন স্থলে ফাটল দৃশ্যমান, কাজের স্টেটিমেডের সঙ্গে বিদ্যমান অসঙ্গতি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে,প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন প্রকল্পে কোনও রকম অনিয়ম বরদাশত করা হবেনা।

এদিকে কলারোয়া থানা পুলিশ কোন রকম তদন্ত ছাড়া চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম এর দেওয়া মিথ্যা মামলার পর পরই অতি উৎসাহী হয়ে সাংবাদিকদের ধরপাকর শুরু করেছে।এব্যাপারে সাংবাদিকদের বিভিন্ন মহল তিব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছেন।

স্থানীয় সাংবাদিকরা সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর কাছে সুষ্ঠ তদন্ত কামনা করেন।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত-২০২০-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Developed BY AMS IT & Solutions