জিয়াউর রহমানের মত শ্বৈরশাসক অস্ত্র গুলি দিয়ে লেলিয়ে দিয়েছে ঐতিহ্যবাহী ছাত্রলীগের মত সংগঠনের বিরুদ্ধে—- মেয়র লিটন

জিয়াউর রহমানের মত শ্বৈরশাসক অস্ত্র গুলি দিয়ে লেলিয়ে দিয়েছে ঐতিহ্যবাহী ছাত্রলীগের মত সংগঠনের বিরুদ্ধে—- মেয়র লিটন

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
যশোর জেলা আওয়ালীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক বেনাপোল পৌরমেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ হচ্ছে অসাম্প্রদায়িক চেতনার একটি সংগঠন। যারা কখনো সরলতা হারায়নি, যারা হারায়নি তাদের সমৃদ্ধ। এই ঐহিহ্যবাহী সংগঠনটি মানব সেবায় দেশের সেবায় দীর্ঘ সময় কাজ করে মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। আমি এই তরুন ছাত্রলীগের নেতাদের বলতে চাই আগামি দিনের সচিব, জজ, ব্যারিষ্টার, মন্ত্রী রাষ্ট্র পরিচালনার সকল দায়িত্বে তোমরা। তাই শার্শাায় যারা দীর্ঘদিন ধরে লড়াই সংগ্রাম করে প্রানের সংগঠন, হৃদয়ের সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ায়ীমী ধরে রেখেছে আজ সেই সব ছাত্রলীগ যুবলীগ আওয়ামীলীগ নেতাদের মুল্যায়ন নেই। কথাগুলো বললেন শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগ ও বেনাপোল পৌর ছাত্রলীগ আয়োজিত ১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্ততি মিটিংয়ে প্রধান অতিথি হিসাবে মেয়র লিটন।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টার সময় বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগ দলীয় কার্যালয়ে শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আকুল হোসাইনের সভাপতিত্বে উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে প্রধান অতিথি হিাসাবে মেয়র লিটন বলেন, পশ্চিম পাকিস্থানের সাথে পুর্ব বাংলাকে আলাদা করতে যারা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল তার মধ্যে ছাত্রলীগের অবদান ছিল সবথেকে বেশী। তাই আমি এখানে উপস্থিত ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের বলতে চাই ছাত্রলীগ এর আলাপ, আলোচনা, চলাফেরা কথাবার্তায় তাদের পরিচয় ফুটে উঠবে সে কোন পিতা মাতার সন্তান। তাদের ব্যবহারেই হবে তাদের বংশের পরিচয়। এরা থাকবে না মদকের সাথে এরা থাকবে না কোন চাঁদাবাজির সাথে। ঐতিহ্যবাহী এই সংগঠনটি ১৯৫২ থেকে ১৯৭১ পর্যন্ত সকল লড়াই সংগ্রামের সাথে দেশের জন্য কাজ করেছে।

তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে এই ছাত্রলীগ মুজিব বাহীনি তৈরী করে তাদের সাড়ে সতেরো হাজার নেতাকর্মীর রক্তের বিনিময়ে এদেশকে স্বাধীন করে একটি স্বাধীন সর্বোভৌম লালসবুজের ভুখন্ড এনে দিয়েছিল। জিয়ারউর রহমানের মত শ্বৈরশাসক অর্থ অস্ত্র দিয়ে দেশের যারা ভবিষ্যৎ সেই ছাত্রদের তিনি নষ্ট করেছেন। তিনি বাংলাদেশ জাতিয়াতবাদী ছাত্রদল নামে একটি ছাত্র সংগঠনক তৈরী করে তাদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়ে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে লেলিয়ে দিয়েছে। জিয়াউর রহমান তার কালোটাকা দিয়ে এদেশের সন্ত্রাসী তৈরী করেছে। তিনি সব থেকে জনপ্রিয় সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের গুম হত্যা করেছে। এই জিয়ার আমলে জাতির জনকের নাম উচ্চারণ করা যেত না, ছোট খাট কোন অনুষ্ঠান করা যেত না। তিনি রাষ্ট্রীয় পৃষ্টপোষকতায় নানা ভাবে জাতির জনকের পরিবারের সদস্যদের ব্যাংক লুটকারী সহ নানা ধরনের কুৎসা রটিয়ে অপদস্ত করেছে। সেই বিষ বাস্প সেই কু বর্ষন স্ইে কু আবেগ থেকে আজও আমার বাংলার মানুষ পরিত্রান পায়নি।

তিনি বলেন ছাত্রলীগ যদি মানুষকে মান্য করে ্ইজ্জত করে সন্মান দেয় তাহলে সেটা হবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ছাত্রলীগ। ১৯৭৫ এর পর থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত দীর্ঘ ২১ টি বছর ক্ষমতার বাইরে থেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীদের হতে হয়েছে অনেক অপমান অপদস্ত। যারা লড়াই সংগ্রাম করে এদেশকে স্বাধীন করেছে সেই মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তের দাম ওই রাজাকারদের প্রসাবের চেয়ে কম মুল্যায়ন করেছে স্বৈর শাসক জিয়ারউর রহমান। তিনি মুক্তি যোদ্ধাদের দিয়ে জুতায় কারি করিয়েছে ভ্যান রিক্সা চালিয়েছেন।
তিনি বলেন বঙ্গবন্ধু এদেশের মানুষের জন্য লড়াই সংগ্রাম করে এই স্বাধীন ভুখন্ড এনেদিয়েছিল। তাই নেলসন মেন্ডোলা বলেছিল আমি ২৭ বর্ছ জেল খেটে দেশ স্বাধীন করেছি। আার বঙ্গবন্ধু মাত্র ৯ মাসে তারা সাড়ে সাতকোটি মানুষকে একত্রিত করে দেশ স্বাধীন করেছে। তিনি কি এমন যাদুৃ জানেন। আমি মুগ্ধ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কাছে। তার জাতিকে সে সুসংগঠিত করেছে সল্প সময়ে।

শার্শা উপজেলা ভাইচ চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান বলেন, ছাত্রলীগের অবদান আমাদের অস্বীকার করার কোন কারন নেই। লড়াই সংগ্রাম এর মধ্যে দিয়ে ১৯৫২ ভাষা আন্দোলন ১৯৫৪ যুক্তফ্রন্ট ১৯৬৬ সালের ছয়দফা ১৯৬৯ সালের গনআন্দোলন ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযদ্ধে এনে দিয়েছে লাল সবুজের পতাকা। তিনি বলেন শার্শায় আজ যে অসভ্য লোকগুলো কিছু ছাত্রলীগ নামধারী লোক দিয়ে চাঁদবাজীর সাথে জড়িয়ে ফেলেছে এই ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ছাত্রলীগ নয়। ছাত্রলীগ হবে আদর্শের সভ্যতার ভদ্রতার। আর এরা বেনাপোল পৌর মেয়র এর নেতৃত্বে ওই কুচক্রী মহলকে উপড়ে দিবে আমি আশাবাদ ব্যক্ত করি। বেনাপোল মেয়র অস্ত্রের রাজনীতি করে না,সন্ত্রাসের রাজনীতি করে না, তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করে। সকলে একত্রিত হয়ে সভ্যতার সাথে ভদ্রতার সাথে এগিয়ে যেতে হবে এবং ওই অত্যাচারী লুন্ঠনকারীদের থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য কাজ করতে হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ফারুক হোসেন উজ্জল, বর্তমান সহ-সভাপতি নাছির উদ্দিন, সাধারন সম্পাদক আকুল হোসাইন, সংগঠনিক সম্পাদক দ্বিন ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক আরিফুর রহমান প্রচার সম্পাদক এনামুল হক মুকুল প্রমুখ।

 

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত-২০২০-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Developed BY AMS IT & Solutions