সংবাদ শিরোনাম :
বেনাপোল ইমিগ্রেশনে সতর্কতাঃ রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক যাতে পালিয়ে ভারত না যেতে পারে বেনাপোল পৌরসভার বাজেট ঘোষনা ।। স্বাস্থ্য খাতে গুরুত্বারোপ ।।চলতি অর্থবছরেই পুর্নাঙ্গ হাসপাতাল নির্মানের পরিকল্পনা কেশবপুর সড়ক দূর্ঘটনায় কৃষকের মৃত্যু বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের অভিযান ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ মাদক বহনকারী গ্রেফতার দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে ডাক্তার আমজাদের বড্ড প্রয়োজন ছিল এই জনপদে—– মেয়র লিটন ডাক্তার আমজাদ এর মৃত্যুতে মেয়র লিটনের শোক বেনাপোলের বাহাদুরপুর সীমান্ত দিয়ে মাদক আসার অভিযোগ বেনাপোলে ব্যবসায়ি জগদীশের মৃত্যুতে মেয়র লিটন এর শোক বেনাপোলে করোনা পজিটিভ এর জন্য তালশারি দুটি বাড়ি লকডাউন বেনাপোল সীমান্তে বিএসএফ গুলিতে মাদক ব্যবসায়ি নিহত
মধ্যনগর প্লাবিত হয়ে গৃহবন্দী জনতা

মধ্যনগর প্লাবিত হয়ে গৃহবন্দী জনতা

অমৃত জ্যোতি,ধর্মপাশা:মানবেতর জীবন নিয়ে আটক আচছে ধর্মপাশার জনমানুষ টানা ৫ দিনের ভারী বর্ষনে ও মেঘালয়  থেকে নেমে আসা সুরমা ও  সোমেশ্বরী নদীতে  পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জ জেলার  ধর্মপাশা  উপজেলায় সৃষ্ট বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। বন্যায় নতুন নতুন এলাকাগুলো প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন প্রায় লক্ষাধিক মানুষ।কেউ কেউ পুনর্বাসন কেন্দ্রে স্থানান্তরিত হচ্ছেন।
বৈশ্বিক মহামারী করোনার  মধ্যে এ বন্যা যেন মরার ওপর খারার ঘা হয়ে এসেছে। ধর্মপাশা উপজেলার বংশীকুন্ডা (উঃ), বংশীকুন্ডা (দঃ),চামরদানী বিশেষ করে মধ্যনগর সদর সহ মধ্যনগর ইউনিয়নের সবগুলো গ্রাম প্লাবিত হওয়ায় মানুষ পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।  বৈঠাখালী নতুন পাড়া,নোওয়া পাড়া,মাছিমপুর কান্দাপাড়া এবং মধ্যনগর মহিষখলা -মধ্যনগর রোড পানির নিচে ডোবে যাওয়ায় মধ্যনগর ও  ধর্মপাশা উপজেলা  সদরের সাথে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়েছে।
এছাড়াও মধ্যনগর সদর থানার প্রধান প্রধান সড়ক,খাদ্যগোদাম,শিক্ষা প্রতিষ্টান,কাট বাজার,ট্রলার ঘাট,কাচাবাজার,মসজিদুল রোড বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। পানির উপর দিয়ে দোকানীদের কে কেনাবেচা করতে দেখা গেছে।
মধ্যনগর থানার ৪ টি ইউনিয়নের করোনাকালের এই বন্যা পরিস্থিতিতে মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছে প্রায় লক্ষাধিক মানুষ।
বন্যাকবলিত মানুষেরা জানান, পাহাড়ী ঢলে সোমেশ্বরী নদীর পানি  বৃদ্ধি পেয়ে আমরা বন্যায় গৃহবন্দী হয়ে পড়েছি।আমাদের অনেকেরই রান্না -খাওয়া বন্ধ হয়ে পড়েছে।যার ফলে আমরা অনাহারে -অর্ধাহারে দিনযাপন করছি।তাই আমরা সরকারের সহযোগিতা  কামনা করছি।
ধর্মপাশা উপজেলা  নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসীর হাসান জানান, ধর্মপাশা উপজেলায় বন্যার্তদের পাশে আমরা সবসময়  আছি।বন্যা কবলিত এলাকায় যারা পানিবন্দি হয়ে পড়েছে  তাদের জন্য আমরা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঐ এলাকার স্থানীয় স্কুলগুলোতে আশ্রয় কেন্দ্রের ব্যাবস্থা করে দেব। উপজেলা  দুর্যোগ ব্যাবস্থপনা কমিটির জরুরি সভার আহবান করা হয়েছে। সভা শেষে আমরা প্রত্যেকটি বন্যার্ত পরিবারের মধ্য সরকারী  ত্রান ও সার্বিক সহযোগিতা পৌঁছে দেব।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত-২০২০-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Theme Developed BY AMS IT & Solutions