সংবাদ শিরোনাম :
বেনাপোল ইমিগ্রেশনে সতর্কতাঃ রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক যাতে পালিয়ে ভারত না যেতে পারে বেনাপোল পৌরসভার বাজেট ঘোষনা ।। স্বাস্থ্য খাতে গুরুত্বারোপ ।।চলতি অর্থবছরেই পুর্নাঙ্গ হাসপাতাল নির্মানের পরিকল্পনা কেশবপুর সড়ক দূর্ঘটনায় কৃষকের মৃত্যু বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের অভিযান ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ মাদক বহনকারী গ্রেফতার দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে ডাক্তার আমজাদের বড্ড প্রয়োজন ছিল এই জনপদে—– মেয়র লিটন ডাক্তার আমজাদ এর মৃত্যুতে মেয়র লিটনের শোক বেনাপোলের বাহাদুরপুর সীমান্ত দিয়ে মাদক আসার অভিযোগ বেনাপোলে ব্যবসায়ি জগদীশের মৃত্যুতে মেয়র লিটন এর শোক বেনাপোলে করোনা পজিটিভ এর জন্য তালশারি দুটি বাড়ি লকডাউন বেনাপোল সীমান্তে বিএসএফ গুলিতে মাদক ব্যবসায়ি নিহত
নীলফামারীর ডোমারে ‘রাস্তা যেন নয়,মরন ফাদ’ সাধারণ মানুষের পাকা করনের দাবি

নীলফামারীর ডোমারে ‘রাস্তা যেন নয়,মরন ফাদ’ সাধারণ মানুষের পাকা করনের দাবি

মোঃ মোশফিকুর ইসলাম, নীলফামারী:নীলফামারী জেলার ডোমার উপজে‌লার ১নং‌‌ ভোগডাবুড়ি  ইউনিয়নের চিলাহাটি মাস্টার পাড়া গ্রামের প্রধান রাস্তাটি বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। দীর্ঘদিন সংস্কার ও পাকা না হওয়ায় রাস্তাটি অচল হয়ে পড়েছে। একটু বৃষ্টি হলেই গর্তে পানি জমে পথচারীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। অথচ কর্তৃপক্ষের এদিকে কোনো নজর নেই।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,চিলাহাটি মাস্টারপাড়া থেকে  চিলাহাটি বটতলী প্রায় ১ থেকে ২ কিলোমিটার রাস্তাটি এখনো পাকা করনের কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে না ।রাস্তাটি দীর্ঘদিন সংস্কার ও‌ পাকা করণের অভাবে বিভিন্ন স্থানে ছোটবড় গর্তে সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তার সাথে পুকুর থাকার কারণে রাস্তা ভেঙ্গে পড়ে যাচ্ছে। আবার সামান্য বৃষ্টিতে কাদাপানি অতিক্রম করে গন্তব্যে স্থানে পৌঁছাতে হয়। ফলে সাধারণ মানুষের যাতায়াতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। এ রাস্তাটি দিয়ে চলাচল করে শত শত ছাত্র-ছাত্রী ও মানুষ জন । একটি মাত্রই পথ এই পথ দিয়ে যেতে হয় কলেজ, স্কুল ,মাদ্রাসা, মেডিকেল , ইত্যাদি জায়গায় ।

রাস্তাটির সাথে  একটি মাদ্রাসা , ভোট কেন্দ্র, রাস্তাটির বেহাল দশা পেরিয়ে সকল গ্রামের মানুষ এই ভোটকেন্দ্রে আসে ভোট দেওয়ার জন্য। এবং পাশে জামে মসজিদ  ,চিলাহাটি বাজার যাতায়াতের একমাত্র পথ। তাছাড়া ও জনবহুল ১০টি গ্রামের সাধারণ মানুষ, কৃষকের উৎপাদিত ফসল বাজারজাত, কোমলমতি শিক্ষার্থী এবং রোগীদের যাতায়াতে যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে এ রাস্তা। রাস্তার উভয় পাশে অন্তত ৫টি পুকুর থাকায় বিভিন্ন স্থানে রাস্তা ভেঙে পড়ছে এবং রাস্তা সরু হয়ে গেছে তেমনি রাস্তাটির অনেক জায়গায় ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। তারপরও রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন ট্রাক, পিকআপ ভ্যান, মাইক্রো, অটোরিকশা, ভটভটি, মোটরসাইকেল, রিকশা, ভ্যানসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচল করে।

কিন্তু ঝুঁকিপূর্ণ এ রাস্তা কবে সংস্কার ও  পাকা করণের ব্যবস্থা গ্রহণ হবে এ নিয়ে শঙ্কিত রয়েছে এলাকাবাসী। কর্তৃপক্ষের কাছে এলাকাবাসীর দাবি অচিরেই যেন এই ঝুঁকিপূর্ণ রাস্তাটি সংস্কার ও পাকা করণের কাজ শুরু করা হয়। রাস্তাটি পাকা করণ কারা হলে, হাজার হাজার মানুষের দুঃখ কষ্ট দূর হবে।এ প্রসঙ্গে ১ নং ভোগডাবুড়ি ইউনিয়নের  চেয়ারম্যান একরামুল হক  বলেন, চিলাহাটি মাস্টারপাড়া থেকে  চিলাহাটি বটতলী প্রায় ১ থেকে ২ কিলোমিটার রাস্তাটির কথা অনেক বার বলছি এমপি মহদোয়কে  পাকা করনের জন্য ।আর এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না।

এমপির  কথা বলে বিষয়টি এড়িয়ে যান  চেয়ারম্যান। ৪০ দিনের কর্মসূচি এলেও পরে না এক টুকড়ি বালু মাটি প্রধান সড়কটিতে। সাধারণ মানুষের সুখ দুঃখের খবর নেওয়ার কেউ নেই । ভ্যান, রিক্সা,  চালক  বলেন , রাস্তাটি কাদা হওয়ার কারণে, আমরা ভ্যান নিয়ে যাতায়াত করতে  পারি না , ভ্যান নিয়ে বের না হলে, পরিবারের সদস্যদের মুখে দু মুঠো খাবার তুলে দিতে পারি না। বৃষ্টি হলে পুরোরাস্তা কাদায় ভরে যায়। কাদায় ভ্যান  নিয়ে চলাচল করা অসম্ভব। আমরা দিন এনে দিন খাই। ভ্যান না চালালে আমাদের চুলায় আগুন জ্বলে না। তাই আমাদের একটাই দাবি  অচিরেই যেন এই ঝুঁকিপূর্ণ রাস্তাটি সংস্কার ও পাকা করণের কাজ শুরু কর হয়।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত-২০২০-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Theme Developed BY AMS IT & Solutions