ঝড়ে লন্ড ভন্ড দেশের দক্ষিন পশ্চিম সীমান্ত শহর বেনাপোল

ঝড়ে লন্ড ভন্ড দেশের দক্ষিন পশ্চিম সীমান্ত শহর বেনাপোল

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
দেশের দক্ষিন Ñপশ্চিম সীমান্ত শহর বেনাপোল সহ আশে পাশের গ্রাম ঝড়ে লন্ড ভন্ড করে দিয়েছে। কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে তা সঠিক নিরুপন করা না গেলেও হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে মন্তব্য করে অভিজ্ঞ মহল। সর্বোকালের সর্বোশ্রেষ্ট এ ঝড়ে বেনাপোল শহর সহ প্রতিটি গ্রামের গাছ পালা, ঘরবাড়ি, এবং কৃষি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

সরেজামিন দেখা গেছে এ বছর এ অঞ্চলে ছিল আমের বাম্পার ফলন। ঝড়ে কৃষকের আমবাগান লন্ডভন্ড করে দিয়ে গেছে। তবে বেনাপোল থানা এলাকায় কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। পোর্ট থানার পিছনের দুটি ঘরের টিন ও বেনাপোল পৌর ট্রাক টার্মিনাল ও বাস টার্মিনালের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

সেই সাথে কৃষকের দেশী কাগজে লেবু বাগান, ড্রুাগন, পেয়ারা বাগান, পেঁপে বাগান সহ শাক সবাজির মাঠ একেবারে ধুলায় মিশিয়ে দিয়ে গেছে। সকাল ৮ টার সময় বের হয়ে বেনাপোল বাজার এলাকায় দেখা গেছে বড় বড় গাছ পড়ে রয়েছে। বৈদ্যুতিক খুটি ও পৌরসভার আধুনিক ল্যাম্প পোষ্টগুলি ভেঙ্গে রোডের উপর পড়ে রয়েছে। প্রতিটি পাড়া মহল্লায় টিনের ঘরের ছাউনি উড়িয়ে নিয়ে গেছে। অেেনকের ঘরে গাছ পড়ে ঘর ভেঙ্গে গেছে। গরু ছাগলের ঘর বিনষ্ট হলেও এসব প্রানীর ক্ষতি হয়নি।

বেনাপোল ছোটআঁচড়া মাঠ, পুটখালী মাঠ, চাতুরীয়ার বিলে ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে সবজি চাষীদের। এ এলাকার বড় বড় আমবাগান রয়েছে। প্রতিবছর এখান থেকে বিদেশে রফতানি হয়ে থাকে পাকা আম। সেই আমবাগানে কাচা আম পড়ে বাগান সয়লাব হয়েছে। চাষীরা আম নিয়ে বাজারে আসলে মাত্র ৫ টাকা কেজি দরে আম বিক্রি করতে দেখা গেছে। আম চাষী ব্ক্স বলেন আমার বাগানে প্রায় ২০ মন কাচা আম পড়ে রয়েছে। এগুলো বাজারে নিলে কেউ কিনতে চাচ্ছে না। এক আড়তদারকে মাত্র ৫ টাকা দাম ধওে আম গুলি দিয়ে এসেছি। বিক্রি হলে আমাকে টাকা দিবে। একই কথা বলেন চাষী হায়দার ্আলী ও জলিল। হায়দার আলীর একটি লেবু বাগান ও রয়েছে। লেবু গাছ গুলো ঝড়ে শুয়ে পড়েছে।
বেনাপোল পৌর সভার আধুনিক বাস ও ট্রাক টর্মিনালের ব্যাপক ক্ষতি স্ধান হয়েছে। টার্মিনালের অত্যাধুনিক গ্লাস ভেঙ্গে এবং পানির ট্যাংকি উড়িয়ে নিয়েছে আমফাম নামের এ ঝড়টি। সাথে টার্মিনালের নির্মিত শ্রমিকদের থাকার ঘর একেবারে ভেঙ্গে দুমড়ে মুচড়ে গেছে।
এ অঞ্চলের কুমড়া. লাউ, পুইশাখ, পটল, ভেন্ডির খেত গুলি ও একেবারে লন্ড ভন্ড করে দিয়েছে এই ঝড়ে।
বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেন আমি কোন দিন গল্পেও এত বড় ঝড়ের কথা শুনিনি। এ অঞ্চলের সর্বোচ্চ বয়স্ক ব্যাক্তি আমির হোসেন বলেন আমি আমার বয়সের প্রায় ৯০ বছর অতিক্রম করতে যাচ্ছি। কখনো এত বড় প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখিনি।

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত-২০২০-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Theme Developed BY AMS IT & Solutions