শার্শায় নাটকীয় ওএমএস এর চাউল কম দেওয়ার অভিযোগে ডিলারের কার্যক্রম সাময়িক স্থগিত

শার্শায় নাটকীয় ওএমএস এর চাউল কম দেওয়ার অভিযোগে ডিলারের কার্যক্রম সাময়িক স্থগিত

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
শার্শায় ওএমএস এর চাউল কম দেওয়ার নাটকীয় অভিযোগে ডিলারকে সাময়িক কার্যক্রম স্থগিত করেছে খাদ্য বান্ধব কমিটি।গত মঙ্গলবার র্শ্শাায় ওএমএস এর ১০ টাকা দরে চাউল বিতরণ কালে ৬০ জন ভোক্তার মধ্যে দুই জনের নাটকীয় অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর কার্যালয়ে বুধবার বেলা ১১ টার সময় জরুরী বৈঠকে সকলের মতামতের ভিত্তিতে ডিলার সাহেব আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানিত না হওয়া সত্বেও সাময়িক তার কার্যক্রম স্থগিতের ঘোষনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার মন্ডল।

স্থানীয় মহিউদ্দিন তোতা মেম্বার বলেন, গতকাল শার্শা বাজারে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মাদ আলীর ছেলে বিশিষ্ট সমাজ সেবক ডিলার সাহেব আলী সরকারের ১০ টাকা দরের ওএমএস এর চাউল বিতরন করেন। প্রায় ৫০ থেকে ৬০ জন মানুষ এই চাউল ক্রয় করে নিয়ে যায়। এর মধ্যে প্রায় এক ঘন্টা পর অভিযোগ আসে নুরজাহান ও আতিকুল নামে দুই জনের চাউল কম দেওয়া হয়োছে। উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা ইন্দ্রজিৎ সাহা এসে ডিলারের পরিমাপক যন্ত্রে চাউল ওজন করলে যথাক্রমে ৩০ কেজির পরিবর্তে পাওয়া যায় ২৮.১৬৫ ও ২৮.১৫৫ কেজি চাউল ।

স্থানীয়রা বলেন যে সময় চাউল দেওয়া হয়েছে সেই সময় চাউল কম দেওয়ার অভিযোগ না তুলে এক ঘন্টা পর কেন অভিযোগ তোলা হলো । এতে সন্দেহ হচ্ছে একটি কুচক্রী মহল ওই প্যাকেট থেকে চাউল রেখে পরে তাদের নিয়ে এসে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে সাহেব আলী কে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করছে। নির্ভরযোগ্য সুত্র বলে,আলামিন, সোহাগ ও জাহাঙ্গীর হোসেন বাবু নামে তিন জন ছাত্রলীগের কর্মী ওই দুইজনকে এক ঘন্ট পরে এনে চাউল কম দেওয়ার অভিযোগের ধোয়া তোলে। সুত্রটি দাবি করে বলে শার্শা আওয়ামলীলীগের নেতা কর্মীদের মধ্যে মত বিরোধের জের ধরে ডিলারশীপ অন্য কাউকে দেওয়ার জন্য মিথ্যা এ নাটক সাজানো হয়েছে।

খাদ্য বান্ধব কমিটির সদস্য সচিব শার্শা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার মন্ডলের অফিস কক্ষে জরুরী এ বৈঠকে যশোর -১ (শার্শা ) আসনের এমপি শেখ আাফিল উদ্দিনের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করেন নাভারন কলেজের অধ্যাক্ষ ইব্রাহীম খলিল। তিনি বলেন, প্রধান মন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বলেছেন ওএমএস ও সকল প্রকার খাদ্য সরবরাহের কোন অনিয়ম মেনে নেওয়া যাবে না। তাই কোন অভিযোগ উঠলে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে হবে। না হলে সাধারন জনগন প্রশ্ন তুলবে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা লাল্টু মিয়া বলেন, চাউল কম দেওয়ার যে অভিযোগ উঠেছে তা বিলম্বে। এবং ওই চাউলটি যেখানে মাপা হয়েছে এবং স্বাক্ষর করা হয়েছে সেখান থেকে অভিযোগ উঠে নাই। এটা সময় ক্ষেপন করে অভিযোগ উঠায় জনমনে নানা প্রশ্ন উঠবে।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস বলেন এটা উদ্দেশ্য প্রনোদিত। কারন অভিযোগকারী  চাউল নিয়ে বাড়ি যেয়ে আবার সেই  চাউল এনে অভিযোগ করলে তা গ্রহন যোগ্য হওয়ার কথা নয়। এছাড়া ৬০ জনের মধ্যে মাত্র দুই জন এ অভিযোগ করেছে তাও যেখান থেকে চাউল মেপে দেওয়া হয়েছে সেখান ওই সময়  অভিযোগ করে নাই।
সাংবাদিক আনিছুর রহমান বলেন, চাউল দেওয়ার পর ডিলারের ওখানে চাউল রেখে মানুষ ডেকে চাউল কম দেওযার অভিযোগ তুললে তা গ্রহনযোগ্যতা পেত। বাড়ি থেকে ঘুরে এসে অভিযোগ করায় সন্দেহ হয় এটা একটি চক্রান্ত। এ অভিযোগ ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত। তাছাড়া ওই দুইজন ভোক্তা যে চাউল বাড়ি রেখে আসে নাই তার কি প্রমান আছে। হয়ত বা এর পিছনে কোন রহস্য লুকিয়ে আছে। তদন্তে সাপেক্ষে রহস্য উন্মোচন করে দায়ি ব্যাক্তিকে শাস্তির দাবি জানান।

উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যন মেহেদী হাসন বলেন, সাহেব আলী একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। সে ৪ বছর যাবৎ ডিলার এর কাজ করছে। তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ ও নাই। এর আগে সে দুস্থ মানুষদের নিজের অর্থ দিয়ে সাহায্য করেছে । গতকাল যে চাউল দেওয়া হয়েছে সেই ৬০ জনের মধ্যে মাত্র দুই জন অভিযোগ করেছে । তাও বাড়ি থেকে চাউল নিয়ে ঘুরে এসে এ অভিযোগ করেন। এ নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন জাগাটা স্বাভাবিক।

বৈঠকে খাদ্য বান্ধব কমিটির মতামতের ভিত্তিতে আপাতত ডিলারের লাইসেন্স স্থগিত না করে সাময়িক তার কার্যক্রম বন্ধ রেখে অন্য ডিলার দিয়ে ওএমএস এর চাউল বিক্রি চালিয়ে যেতে হবে। এবং খাদ্য কর্মকর্তা ইন্দ্রজিৎ সাহা বিষয়টি অধিকতর তদন্ত করে রিপোর্ট পেশ করবেন। কতদিন পর রিপোর্ট দিবেন এমন প্রশ্নে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার মন্ডল বলেন একটু সময় লাগবে। যেহেতু করোনা ভাইরাস আবার ঈদের ছুটি তাতে একটু বিলম্ব হতে পারে।

মোঃ আনিছুর রহমান

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত-২০২০-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Theme Developed BY AMS IT & Solutions