সংবাদ শিরোনাম :
ঝিনাইদহে সিফাত হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধনঝিনাইদহে সিফাত হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন বিমানে কক্সবাজার (যাওয়া-আসা) মাত্র ১৫০০ টাকায় নবাবগঞ্জে যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উদযাপন বেনাপোল লোটো শো-রুম উদ্বোধন বেনাপোল লোটো শো-রুম উদ্বোধন বেনাপোল পোষ্ট অফিসে সঞ্চয় পত্রের মুনাফা ভোগীরা হয়রানীর শিকার হচ্ছে প্রতিদিন।। দুর-দুরান্ত থেকে আসা বয়স্করা পড়ছে বিপাকে নীলফামারীর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সন্ত্রাসী সাদ্দাম সাংবাদিককে পেটালেন বেনাপোল বন্দর প্রেসক্লাবের সাঃ সম্পাদক ও সময় টিভির বেনাপোল প্রতিনিধি আজিজুল হকের ৪২-তম জন্মদিন পালিত শার্শায় ২ কেজি হেরোইন ও ৭৪৬ পিছ ইয়াবা উদ্ধার নবাবগঞ্জে প্রেসক্লাবের কমিটির সাথে শিবলী সাদিক এমপির মতবিনিময়
বেনাপোলে পরিত্যাক্ত ফেনসিডিল উদ্ধার; প্রমান ছাড়া ব্যবসায়ির মোটরসাইকেল জব্দের অভিযোগ

বেনাপোলে পরিত্যাক্ত ফেনসিডিল উদ্ধার; প্রমান ছাড়া ব্যবসায়ির মোটরসাইকেল জব্দের অভিযোগ

 

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
বেনাপোলে ফসলি জমির মধ্যে থেকে পরিত্যাক্ত অবস্থায় ৮১ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে বিজিবি।এসময় ফেনসিডিলের মালিক না পেয়ে ওই জমি থেকে ৩০০ শত গজ দুরে একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে হাফিজা বেগম (৬০) নামে এক নারীকে চেয়ারের সাথে বেধে রেখে ঘরের ভিতর থেকে একটি পালসার মোটর সাইকেল বের করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেছে ওই বাড়িওয়ালারা।

সোমবার বেলা ২ টার সময় এ ঘটনা ঘটে বেনাপোলের আমড়খালী গ্রামে।

বড়ির মালিক আমড়খালী গ্রামের ইমান আলীর ছেলে মোঃ বাবু বলেন, আমি দুপুরে বাড়ি ভাত খাচ্ছিলাম। এসময় আমাদের বাড়ির পিছনের দিক থেকে একদল বিজিবি হাতে টোপলা নিয়ে বাড়ির ভিতর প্রবেশ করে। এরপর আমাকে বলে ফেনসিডিলের মালিক কে? আমি তাদের বলি আমি কি করে বলব? আমি আমড়খালী মোড়ে সার কীটনাশক ও মোবাইল ফ্লাক্সির ব্যবসা করি। এসময় বিজিবি আমাকে ধরে বলে কে ব্যবসা করে দেখায়দে নইলে তোকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হবে। এ কথায় আমি ভয় পেয়ে কৌশলে বিজিবির কাছ থেকে সরে পড়ি। এরপর বিজিবি আমার মা হাফিজা বেগমকে ওড়না দিয়ে চেয়ারের সাথে বেঁধে রাখে। তারপর ঘরের ভিতর থেকে মোটর সাইকেল বের করে সেই মোটর সাইকেল উঠানে রেখে ফেনসিডিল রেখে ছবি তুলে নিয়ে যায়। এছাড়া আমার নামে এ পর্যন্ত কোথাও কোন মাদক মামলা বা অন্য কোন মামলা নেই।

বাবুর মা হাফিজা বেগম বলেন, আমি বা আমার ছেলে কোন অন্যায় করি নাই। কি কারনে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি এবং হাতে পায়ে ধরা সত্বেও মোটর সাইকেল নিয়ে গেল তা বুঝতে পারলাম না। এছাড়া আমি বয়স্ক একজন মানুষ আমাকে পিট মোড়া দিয়ে কি কারনে বিনা অন্যায়ে চেয়ারের সাথে বেধে রাখা হলো তাও জানতে পারলাম না।

স্থানীয় হাশেম আলীর স্ত্রী নারগিছ খাতুন, রাকিবের স্ত্রী কোহিনুর ও জামশেদ এর স্ত্রী রেহেনা বেগম বলেন, এধরনের কাজ আগে পুলিশ করত শুনেছি। এখন বিজিবি এমন অন্যায় কাজ করছে। তাহলে আমরা বসবাস করব কি ভাবে? আমরা কোনদেশে বসবাস করছি? অন্যায় ভাবে আমাদের একজনের দায় আর একজনের ঘাড়ে চাপিয়ে দিচ্ছে। যদি এরা ফেনসিডিলের ব্যবসা করবে তাহলে কেন মোটর সাইকেল ঘরের মধ্যে থেকে নিয়ে গেল মোটর সাইকেল সহ তার স্ত্রী মাকে নিয়ে গেল না কেন?

স্থানীয় গ্রামবাসীরা বলেন, মাদক উদ্ধার হোক এবং আসামি ধরা পড়–ক এটা আমরা চাই। তবে নিরীহ লোককে ফাঁসানো অন্যায়। মাল সহ ধরতে পারলে আমরা খুশি হতাম। জোর করে ঘরের মধ্যে থেকে মোটর সাইকেল বের করা অন্যায় বলে আমরা মনে করি।

৪৯ বিজিবি, বেনাপোল ক্যাম্প সুবেদার মোবাইল ফোনে এ প্রতিবেদককে বলেন, ৮১ পিছ ফেনসিডিল সহ একটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে। আমড়াখালী গ্রামে মোটর সাইকেলের সাথে এ ফেনসিডিল ছিল। তবে ফেনসিডিলের সাথে কোন আসামি পাওয়া যায়নি। উদ্ধারকৃত মোটরসাইকেল বেনাপোল শুল্ক গুদামে জমা করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

 

সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত-২০১৮-এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
Theme Developed BY AMS IT & Solutions